ঢাকা থেকে মেহেরপুর বাস প্রাইজ, কাউন্টার নাম্বার, লোকেশন ও ভ্রমণ গাইড

পরিচিতি –

মেহেরপুর সদর উপজেলা বাংলাদেশের মেহেরপুর জেলার একটি প্রশাসনিক এলাকা। সদর উপজেলা উত্তরে গাংনী ও ভারত, দক্ষিণে মুজিবনগর উপজেলা পূর্বে গাংনী ও চুয়াডাঙ্গা জেলা এবং পশ্চিমে ভারত দ্বারাবেষ্টিত। ১৯৮৪ খ্রিষ্টাব্দে মেহেরপুর থানা উপজেলায় উন্নীত হয়। মেহেরপুর নামকরণের পিছনে ভিন্ন ভিন্ন মত রয়েছে। দরবেশ মেহের আলীর নামানুসারে এই এলাকার নামকরণ করা হয় মেহেরপুর। আবার কারো কারো মতে খনার পতি মিহির এর নাম হতে মেহেরপুর নামকরণ করা হয়। অন‍্য একটি প্রবাদ মতে, মোহর থেকে মেহের নামের উৎপত্তি। মোহর শব্দের অর্থ মৃল‍্যবান ধাতু বা সম্পদ। এখানে বসবাসকারী দরবেশগণ স্থানীয়দের কাছে ছিলেন মোহরস্বরূপ। তাই এই এলাকার নাম হয় মেহেরপুর। এ উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন (কুতুপপুর,আমঝুপি,বুড়িপোতা,আমদহ,পিরোজপুর) রয়েছে।



যেভাবে যাবেন-

নিচে পেইজ স্ক্রল করলে এসি/নন এসি বাসের সকল তথ্য পেয়ে যাবেন।

মেহেরপুর দর্শনীয় স্থানসমূহ-

আমঝুপি নীলকুঠিঃ

ব্রিটিশ শাসনামলে ইংরেজরা বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে নীল চাষের জন‍্য অসংখ্য নীলকুঠি গড় তোলে। এর মধ‍্যে আমঝুপি নীলকুঠি অন‍্যতম। ইতিহাসবিদের মতে,খুব সম্ভবত ১৮০০ এর দশকে এই নীল কুঠি গড়ে তোলা হয়। আমঝুপি গ্রামের কাজলা নদীর কোল ঘেঁষে সবুজ শ‍্যামলে ঘেরা ৭৭ একর জমির উপর এই কুঠির অবস্থান। আমঝুপি নীল কুঠির সামনে বাধাঁই করা স্বর্ণালি ইতিহাস থেকে জানা যায়। ১৯৭৮ সালে ১৩ মে তারিখে খুলনা বিভাগ উন্নয়ন বোর্ডের আমঝুপি অধিবেশনের সভায় নীলকুঠিটি পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা নেওয়া হয়।সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী ১৯৭৯ সালে আমঝুপি নীলকুঠি পুননিমার্ণ ও একটি আম বাগান গড়ে তোলা হয়। ইতিমধ্যে কুঠিবাড়ি ঘিরে কৃত্রিম লেক, ঝর্ণাধারা, বিভিন্ন পশু-পাখির প্রতিমূর্তি, খেলাধুলার সরঞ্জাম, পানি, পয়-নিষ্কাশনের ব‍্যবস্থাসহ চলাচলের রাস্তা ও বাহারি সব ফুলের বাগান করা হয়েছে। কিশোরগঞ্জের সকল দর্শনীয় স্থানের তথ্য জানতে ক্লিক করুন এখানে।

ঢাকা থেকে মেহেরপুর গিয়ে কোথায় গাড়ি পাব? কাউন্টার কোথায়? গাড়ি না পেলে কী করবো? রাতে কী গাড়ি পাব? থাকার জায়গা পাব? রেস্টুরেন্ট খোলা থাকবে? সব তথ্য জানতে ক্লিক করুন

ঢাকা থেকে মেহেরপুর স্থল পথে সরাসরি নন স্টপ বাসে করে যায়। বাসের মধ্যে এসি/নন এসি উভয় ধরণের বাসের সুব্যবস্থা রয়েছে।


নিম্নে সকল গাড়ীর ভাড়া ও বাসের কাউন্টারের সাথে যোগাযোগ করার জন্য যোগাযোগ অপশন রয়েছে, যেখানে ক্লিক করলে কাউন্টারের সকল তথ্য পেয়ে যাবেন.

নন এসি বাস

বাসের নাম

ভাড়া 

বিস্তারিত 

জে আর পরিবহন

৪৫০ টাকা

শ্যামলী পরিবহন

৪৫০ টাকা

চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্স

৪৫০ টাকা

যোগাযোগ

এস এম পরিবহন

৪৫০ টাকা

যোগাযোগ

রয়েল এক্সপ্রেস

৪৫০ টাকা
৬০০ টাকা

এসি বাস

বাসের নাম

ভাড়া 

বিস্তারিত 

জে আর পরিবহন

ইকোনো  ৬০০ টাকা
বিজনেস ৮০০ টাকা

রয়েল এক্সপ্রেস

ইকোনো  ৭০০ টাকা
বিজনেস ১০০০ টাকা

পরার্মশঃ আপনি যে বাসে করে যাওয়ার সিদ্বান্ত নিয়েছেন ঐ বাস সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন। হয়রানির সম্মূখিন হলে বা কোন অভিযোগ থাকলে তাদের জরুরী মোবাইল নাম্বারে জানান। অথবা আমাদের নিজস্ব ফেইসবুক গ্রুপপেইজ রয়েছে, যেখানে আপনারা আপনাদের মতামত জানাতে পারেন। যে বাসে করে আপনি ভ্রমণে যাচ্ছেন, সে বাস সম্পর্কে লিখুন আমাদের ফেইসবুক গ্রুপে, আপনার একটি লিখা ঐই বাস কে যাত্রী সেবার মান বাড়াতে সাহায্য করবে। এবং আমাদের ওয়েব সাইটের নিয়মিত আপডেট পেতে ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন।
এছাড়াও আমাদের ওয়েব সাইট নিয়ে কোন অভিযোগ বা পরামর্শ বা কোন তথ্য আমাদের কাছে পাঠাতে চায়লে মেইল করুন- info@kemnejabo.com । ধন্যবাদ ।

x